ভারতের সাত রাজ্যে বন্যা, নিহত ৭৭৪

Spread the love

কেরালায় শত বছরের ভয়াবহ বন্যা : ১০ হাজার কিলোমিটার রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত

ভারতের সাত রাজ্যে চলতি বর্ষা মৌসুমে ভয়াবহ অতিবৃষ্টি ও বন্যায় অন্তত ৭৭৪ জন নিহত হয়েছেন। সোমবার ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জাতীয় জরুরি তৎপরতা কেন্দ্রের (এনইআরসি) তথ্য মতে, বর্ষা মৌসুমে বন্যা ও বৃষ্টিতে কেরালা রাজ্যে ১৮৭ জন, উত্তরপ্রদেশে ১৭১, পশ্চিমবঙ্গে ১৭০, মহারাষ্ট্রে ১৩৯, গুজরাটে ৫২, আসামে ৪৫ ও নাগাল্যান্ডে আটজন নিহত হয়েছেন।

কেরালা রাজ্যে শত বছরের মধ্যে ভয়াবহ বন্যা হয়েছে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

মৌসুমি বৃষ্টিপাতে সৃষ্ট বন্যায় অন্তত ২৭ জন নিখোঁজ রয়েছেন। যার মধ্যে কেরালায় ২২ ও পশ্চিমবঙ্গে পাঁচজন রয়েছেন। তাছাড়া বন্যা-বৃষ্টিজনিত ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ২৪৫ জন। মহারাষ্ট্রের ২৬টি, আসামের ২৩, পশ্চিমবঙ্গের ২২, কেরালার ১৪, উত্তরপ্রদেশের ১২, নাগাল্যান্ডের ১১ ও গুজরাটের ১০টি জেলা বন্যায় আক্রান্ত হয়েছে।

আসামে ১১ লাখ ৪৫ হাজার লোক বন্যা-বৃষ্টিতে আক্রান্ত হয়েছেন। ওই রাজ্যের ২৭ হাজার ৫৫২ হেক্টর আবাদি জমি নষ্ট হয়েছে। আসামে সব মিলিয়ে ১৫টি জাতীয় দুর্যোগ তৎপরতা বাহিনী (এনডিআরএফ) দল উদ্ধার ও ত্রাণ কার্যক্রম চালাচ্ছে, যার প্রতি দলে রয়েছে ৪৫ জন।

উত্তরপ্রদেশে আটটি, পশ্চিমবঙ্গে আটটি, গুজরাটে সাতটি, কেরালায় চারটি এবং মহারাষ্ট্র ও নাগাল্যান্ডে একটি করে এনডিআরএফ দল উদ্ধার ও ত্রাণ কার্যক্রম চালাচ্ছে। ভারতের আবহাওয়া অফিস সামনের দিনগুলোতে ১৬টি রাজ্যে সতর্কতা জারি করেছে। যার মধ্যে উত্তরপ্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, কেরালা, কর্নাটক, তামিলনাড়ু, পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, নাগাল্যান্ড ও অরুণাচল প্রদেশ রয়েছে।

এদিকে টানা ৬ দিনের বৃষ্টিপাতে কেরালায় ১৯২৪ সালের পর ভয়াবহ বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। গত ৮ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া এ বন্যায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮৬ জনে। রাজ্য মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে টুইটারে বলা হয়, এ বন্যায় প্রায় ৮ হাজার ৩১৬ কোটি রুপি ক্ষতি হয়েছে।

বন্যায় ১০ হাজার কিলোমিটার রাস্তা নষ্ট হয়ে গেছে। আবহাওয়া বিভাগ ভারতের স্বাধীনতা দিবস ১৫ আগস্ট পর্যন্ত ভারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!