পাকিস্তান এখন বাংলাদেশ হতে চায়–পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান

Spread the love

 

 

মো.শাহজাহান মিয়া ::

 

সরকারের পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেছেন, যে পাকিস্তান আমাদের রক্ত ঝরিয়েছিল, সেই পাকিস্তান এখন বাংলাদেশ হতে চায়। যে বাংলাদেশকে নিয়ে অন্য দেশের মানুষ হাসি-তামাশা করতো, আজ সেই বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে মর্যাদার আসনে রয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে রক্ত দিয়ে এ দেশ স্বাধীন করে দিয়েছেন বীর মুক্তি সেনারা। দিয়েছেন পরাধীনতা থেকে মুক্তি।
বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের প্রতিটি অঞ্চলে চলছে উন্নয়ন কাজ। শেখ হাসিনা সৎ সাহসিকতায় আজ পদ্মসেতু দৃশ্যমান। সেই সাথে সুনামগঞ্জের পদ্মাসেতু রাণীগঞ্জ সেতুর কাজ এখন শেষ পর্যায়ে।
মন্ত্রী বলেন, সুনামগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এনেছি। স্থান প্রস্তাব নিয়ে অনেক নাটকীয়তা হয়েছে। তা কাম্য নয়। স্থানীয় সাংসদ দ্বিমত পোষন করতে পারেন। তবে অন্য কয়েকজন সাংসদের মন্তব্য নিয়ে মন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আমি উন্নয়নের রাজনীতি করি। নামের রাজনীতি করিনা। সুতরাং যতদিন বেঁচে আছি মানুষের সেবা করে যাবো।
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ সেতুর নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন সহ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন উপলক্ষে রাণীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। ২৫ ডিসেম্বর শুক্রবার স্থানীয় ইউনিয়ন আ.লীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, যুক্তরাজ্য আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক, জগন্নাথপুর উপজেলা আ.লীগের সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আকমল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু।
রাণীগঞ্জ ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি হাজী সুন্দর আলীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ডা.ছদরুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি আবদুল কাইয়ূম মশাহিদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিজন কুমার দেব, রাণীগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রানা, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কামাল উদ্দিন, সহ-সভাপতি সালেহ আহমদ, রাজিব তালুকদার, মমরাজ হোসেন রাজ, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাফরোজ ইসলাম মুন্না, রিপন, হিবলু প্রমূখ। অনুষ্ঠান শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আব্বাছ আলী ও গীতাপাঠ করেন ডা.অতীন্দ্র সুত্রধর।

এ সময় জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসান, জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র মিজানুর রশীদ ভূইয়া, প্যানেল মেয়র শফিকুল হক, সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ সদস্য মাহতাবুল হাসান সমুজ, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মধু সুধন ধর, উপজেলা কলকলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল হাসিম, চিলাউড়া-হলদিপুর ইউপি চেয়ারম্যান আরশ মিয়া, রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মজলুল হক, সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান তৈয়ব মিয়া কামালী, আশারকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আবু ইমানী, পাইলগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান মখলুছ মিয়া, সাবেক চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিন, রাণীগঞ্জ কলেজের অধ্যক্ষ আলাউর রহমান ঠাকুর, প্রভাষক মিছলুর রহমান, সৈয়দপুর কলেজের অধ্যক্ষ আবদুর রহমান, রাণীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুস সামাদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ধণেশ চন্দ্র রায়, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নুর হোসেন, দরগাপাশা ইউপি চেয়ারম্যান মনির উদ্দিন, শিমুলবাক ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জিতু, জগন্নাথপুর উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম-সম্পাদক লুৎফুর রহমান, সুজিত কুমার রায়, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আফছর উদ্দিন ভূইয়া, উপজেলা মৎস্যজীবি লীগের সভাপতি আরাফাত মিয়া, উপজেলা শ্রমিক লীগের আহাবয়ক নুরুল হক, সদস্য সচিব জাহির উদ্দিন, পৌর আ.লীগের সভাপতি ডা.আবদুল আহাদ, সাধারণ সম্পাদক হাজী ইকবাল হোসেন ভূইয়া, সমাজকর্মী সাহানুল ইসলাম, ইকবাল হোসেন সহ উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা দলীয় নেতাকর্মী ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার হাজারো জনতা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *