নির্বাচনে কোন অবস্থায় আচরণবিধি লঙ্ঘন করা যাবে না–জেলা প্রশাসক

Spread the love

মো.শাহজাহান মিয়া ::

 

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা সমন্বয় সেল এর উদ্যোগে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থীগণের আচরণবিধি অবহিতকরণ ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
১৩ ডিসেম্বর সোমবার আবদুস সামাদ আজাদ অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বিপিএম ও সুনামগঞ্জ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুরাদ উদ্দিন হাওলাদার। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাজেদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) ও রিটার্নিং অফিসার গোলাম সারোয়ার এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার মুজিবুর রহমান। বক্তব্য রাখেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার শওকত ওসমান মজুমদার, চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে শহিদুল ইসলাম বকুল, আহমেদ হোসাইন, নারী সদস্য প্রার্থীদের মধ্যে হোছনারা বেগম, আলেয়া বেগম, সাধারণ সদস্য প্রার্থীদের মধ্যে আবদুল ওয়াদুদ প্রমূখ। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এনএসআই সহকারি পরিচালক নাসির উদ্দিন, জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) অনুপম দাস ও জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, নির্বাচনে কোন অবস্থায় আচরণবিধি লঙ্ঘন করা যাবে না। কোন ধরণের বাধা প্রদান বা অস্ত্র ব্যবহার চলবে না। কোন প্রার্থী তার প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিরুপ মন্তব্য করতে পারবে না। নির্বাচন পরে কোন বিজয় মিছিল করা যাবে না।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বলেন, আমরা শতভাগ নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন উপহার দিতে চাই। প্রয়োজনে সর্বশক্তি প্রয়োগ করা হবে। তবে অযথা গুজবে কেউ বিভ্রান্ত হবেন না। কোন সমস্যা হলে আমাদের জানাবেন। আরেক বিশেষ অতিথি জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুরাদ উদ্দিন হাওলাদার বলেন, নির্বাচনে কেন্দ্র দখল কিংবা মারামারি করলে প্রার্থীতা বাতিল সহ নির্বাচন স্থগিত করা হবে। সুতরাং সকল প্রার্থীকে অবশ্যই নির্বাচনী বিধি নিষেধ মানতে হবে।

এ সময় উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী আলাল হোসেন রানা, আবদুস সোবহান, রফিক মিয়া, পাটলি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী আংগুর মিয়া, সিরাজুল হক, আতিকুর রহমান আতিক, আবদুল হাই আজাদ, এনামুল ইসলাম, চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুল গফুর, শহিদুল ইসলাম বকুল, আরশ মিয়া, মুজিবুর রহমান, আবদুল মমিন, ইলাছ মিয়া, রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী শেখ ছদরুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম রানা, সিরাজুল ইসলাম আশিক, ছালিক মিয়া, আমান উদ্দিন আহমদ, সৈয়দপুর-শাহার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল হাসান, মকসুদ মিয়া, মুকিতুর রহমান, আজহারুল ইসলাম কামালী, সৈয়দ আসাদ হোসেন চৌধুরী, আশারকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী আইয়ূব খান, শাহ তারেক রহমান নিপু, আবদুস ছত্তার, গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী পারভেজ, মোহাম্মদ আলী, আহমেদ হোসাইন, লেবু মিয়া, সৈয়দ জমিরুল হক ও পাইলগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী মখলুছ মিয়া, সুন্দর উদ্দিন, ফারুক আহমদ, দবিরুল ইসলাম সহ ৭ ইউনিয়নের সকল চেয়ারম্যান, নারী সদস্য ও সাধারণ সদস্য প্রার্থী সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *