জগন্নাথপুরে সামান্য অবহেলায় প্রার্থীদের ভোগান্তি ও ভরাডুবির আশঙ্কা

Spread the love

 

মো.শাহজাহান মিয়া ::

 

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে নির্বাচন আসলেই সামান্য অবহেলা ও প্রতিযোগিতা করতে গিয়ে অনেক প্রার্থীদের অনাকাঙ্খিত নানা ভোগান্তির শিকার হতে হয়। অনেক সময় নিশ্চিত বিজয় ও পরাজয়ে পরিণত হয়। অধিকাংশ প্রার্থীরা তা জেনেও প্রতিযোগিতা করতে গিয়ে এমন অবহেলা করেন।
নির্বাচনে প্রতিযোগিতামূলক মনোনয়নপত্র দাখিল করতে গিয়ে এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়। এ ক্ষেত্রে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ অধিকাংশ প্রার্থীর পছন্দ। এ দিন শতশত কর্মী-সমর্থকদের সাথে নিয়ে রীতিমতো বিজয় মিছিলের মাধ্যমে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের হিড়িক পড়ে। এ সময় পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয় নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের। প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র গ্রহণ করতে করতেই তাদের দিন পার হয়ে যায়। মনোনয়নপত্র সহ জরুরি কাগজপত্র দেখার সুযোগ থাকে না। যে কারণে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইকালে অনেক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যায়। যার প্রভার পড়ে নির্বাচনী মাঠে। যদিও নানা ভোগান্তির শিকার হয়ে অবশেষে আপিলের মাধ্যমে অনেক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র আবার বৈধ হয়। ততক্ষণে ওই প্রার্থীর নির্বাচনী মাঠ চলে গেছে অন্যের দখলে। ফলে নিশ্চিত জয় হওয়ার সম্ভাবনা থাকা সত্বেও পরাজয় মেনে নিতে হয় ওই প্রার্থীর।
অথচ মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখের মাত্র ২/৩ দিন আগে মনোনয়নপত্র দাখিল করলে ছোট ছোট ভূলত্রুটিগুলো সংশোধন করার সুযোগ পেতেন নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এ সামান্য অবহেলার জন্য অনেক প্রার্থীদের ভোগান্তি ও ভরাডুবির শিকার হতে হয়। অতীতের বিভিন্ন নির্বাচনে এমন ঘটনা ঘটেছে।
এবারের নির্বাচনেও এমন অবস্থার আশঙ্কা বিরাজ করছে।
এবার জগন্নাথপুর উপজেলার ১নং কলকলিয়া, ২নং পাটলি, ৫নং চিলাউড়া-হলদিপুর, ৬নং রাণীগঞ্জ, ৭নং সৈয়দপুর-শাহারপাড়া, ৮নং আশারকান্দি ও ৯নং পাইলগাঁও সহ ৭টি ইউনিয়নে আগামী ২৩ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ আগামী ২৫ নভেম্বর। ৬ ডিসেম্বর হবে যাচাই-বাছাই। বর্তমানে চলছে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ আসতে আর মাত্র বাকি আছে ৬ দিন। এখনো মনোনয়নপত্র জমা দেয়া শুরুই হয়নি। এতে প্রতীয়মান হয়, এবারো শেষ তারিখে মনোনয়নপত্র দাখিলের হিড়িক পড়বে।
এ বিষয়ে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান জানান, নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা নেয়ার শেষ দিনে বেশিরভাগ প্রার্থীরা তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এক সাথে সবার মনোনয়নপত্র জমা নিতে গিয়ে দিন পার হয়ে যায়। যে কারণে তাদের কাগজপত্রের ভূলত্রুটি সংশোধনের সুযোগ থাকে না। তবে ২/৩ দিন আগে জমা দিলে ছোট ছোট ভূলত্রুটি সংশোধন করা যেত। তাই এ সামান্য অবহেলার জন্য অনেক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল সহ তারা নানা ভোগান্তির শিকার হন। আমরা তা চাই না। আমরা প্রার্থীদের সেবা দিতে আন্তরিক। তবে সময় থাকতে তাদেরকে আসতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *