জগন্নাথপুরে মেয়ের জন্য বৃদ্ধ পিতাকে নির্মম প্রহার ॥ আটক ৪

Spread the love

 

মো.শাহজাহান মিয়া ::

 

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে মেয়ের খোঁজে পিতাকে তুলে এনে নির্মম প্রহারের ঘটনায় ৪ জনকে আটক করেছে থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে, গোতগাঁও গ্রামের মৃত জহির আলীর ছেলে আক্কাই হোসেন, একই গ্রামের মৃত গিয়াস উদ্দিনের ছেলে ইলাছ উদ্দিন, ধনাই মিয়ার ছেলে লিটন মিয়া ও খানপুর গ্রামের মৃত জাফর খানের ছেলে আলম খান। তবে মূল অভিযুক্ত শামীম এখনো ধরা পড়েনি। তাকে গ্রেফতারে পুলিশের সাঁড়াশি অভিযান চলছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের গোতগাঁও গ্রামের অসহায় বৃদ্ধ আনোয়ার হোসেনের কন্যাকে দীর্ঘদিন ধরে অত্যাচার-নির্যাতন করে আসছে একই গ্রামের প্রভাবশালী শামীম আহমদ। এক পর্যায়ে শামীমের ভয়ে গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যান বৃদ্ধ আনোয়ার হোসেন সহ তার পরিবার। নতুন করে বসবাস করেন আলীপুর গ্রাম এলাকার ভাড়া বাসায়। সেখানে গিয়েও হানা দেয় শামীম। তখন শামীমের ভয়ে আবারো বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে যায় বৃদ্ধ আনোয়ার হোসেনের কন্যা।
এদিকে-৫ অক্টোবর সোমবার রাতে মেয়েকে না পেয়ে তার ৭০ বছর বয়সী বৃদ্ধ পিতা আনোয়ার হোসেনকে আলীপুর থেকে গোতগাঁও গ্রামে ধরে নিয়ে আসে শামীম। এখানে এনে বৃদ্ধ আনোয়ার হোসেনকে লোহার রড দিয়ে অমানবিক প্রহার করে। এ প্রহারের ভিডিও ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে গেলে তৎপর হয়ে উঠেন থানা পুলিশ। শুরু হয় পুলিশের সাঁড়াশি অভিযান। ৬ অক্টোবর মঙ্গলবারের মধ্যে একে একে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে ৪ জনকে আটক করা হয়। সেই সাথে শামীমের ভয়ে আত্ম-গোপনে থাকা বৃদ্ধ আনোয়ার হোসেনের সেই কন্যাকে উদ্ধার করা হয়েছে। আহত বৃদ্ধকে জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা দেন পুলিশ। বর্তমানে মূল অত্যাচারী শামীমকে হন্য হয়ে খুজছে পুলিশ। থানার এসআই রফিকুল ইসলাম, এসআই আরিফ, এসআই ফিরোজ মিয়া, এএসআই শিবলু মজুমদার ও এএসআই মনির হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশ দল পৃথক অভিযান চালিয়ে এসব আসামীদের আটক ও ভিকটিমকে উদ্ধার করেন। জগন্নাথপুর থানার এএসআই শিবলু মজুমদার তা নিশ্চিত করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *