জগন্নাথপুরে ইউপি নির্বাচন নিয়ে আশা-নিরাশায় প্রার্থী ও ভোটার

Spread the love

 

মো.শাহজাহান মিয়া ::

 

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে রীতিমতো ধোয়াশা বিরাজ করছে। কবে নির্বাচন হবে নিশ্চিত ভাবে কেউ কিছু বলতে পারছেন না। যে কারণে নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত নন সম্ভাব্য প্রার্থী ও ভোটার সাধারণ। যদিও গত ২ মাস ৭ দিন আগে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। তবুও নির্বাচন না হওয়ায় অতিরিক্ত সময় দায়িত্ব পালন করছেন বর্তমান জনপ্রতিনিধিরা। মহামারি করোনার জন্য নির্বাচন পিছিয়ে গেলে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। এতে আশা-নিরাশার দোনাচলে রয়েছেন উপজেলা বাসী।
১ টি পৌরসভা ও ৮ টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত জগন্নাথপুর উপজেলা। এর মধ্যে জগন্নাথপুর পৌরসভা ও উপজেলার মিরপুর ইউনিয়ন নির্বাচনের মেয়াদ এখনো শেষ হয়নি। তবে কলকলিয়া, পাটলি, চিলাউড়া-হলদিপুর, রাণীগঞ্জ, সৈয়দপুর-শাহারপাড়া, আশারকান্দি ও পাইলগাঁও সহ বাকি ৭টি ইউনিয়নের মেয়াদ শেষ হয়েছে গত ২ মাস ৭ দিন আগে।
জানাগেছে, বিগত ২০১৬ সালের ১৬ জুন এ ৭ ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় কলকলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন প্রয়াত আবদুল হাসিম। তিনি মারা যাওয়ায় বর্তমানে এ ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন প্যানেল চেয়ারম্যান আবদুল হাসিম। এছাড়া পাটলি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজুল হক, চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আরশ মিয়া, রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রানা, সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তৈয়ব মিয়া কামালী ও আশারকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ আবু ইমানী এখনো দায়িত্ব পালন করছেন। এর মধ্যে পাটলি ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল হক একবার বরখাস্ত হলেও তিনি আপিলে ফিরে আসেন। তবে পাইলগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান মখলুছ মিয়া এখনো বরখাস্ত রয়েছেন।
এ বিষয়ে জনপ্রতিনিধি ও ভোটারদের মধ্যে অনেকে জানান, এখন নিরব থাকলেও নির্বাচনের তপশিল ঘোষণা হলে আবারো সরব হয়ে উঠবে জগন্নাথপুর উপজেলা। চারদিকে ছড়িয়ে পড়বে নির্বাচনী আমেজ। বিভিন্ন দেশ থেকে এসে প্রবাসী প্রার্থীরা নির্বাচনে অংশ নেবেন। নতুন ও পুরাতন প্রার্থীদের মধ্যে শুরু হবে ভোটযুদ্ধ। এ সময় কদর বাড়বে ভোটার সাধারণের।
২৩ আগস্ট সোমবার জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান জানান, বিগত ২০১৬ সালের ১৬ জুন এ ৭ ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সে হিসাবে বর্তমান জনপ্রতিনিধিদের মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে। মহামারি করোনার কারণে সরকারি সিদ্ধান্তে নির্বাচন স্থগিত রয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখনই নির্দিষ্ট ভাবে বলা যাচ্ছে না কবে হচ্ছে, আগামী নির্বাচন। তবে যে কোন মূহুর্তে নির্বাচনের তপশিল ঘোষণা হতে পারে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *